গুগল সার্চ- জেনে নিন কি কি জিনিষ সার্চ করা উচিৎ নয়

জ্ঞান লাভের জন্য আপনি কি গুগল (Google)এর ওপরনির্ভরশীল? মন যখন কোন কিছু জানতে চায়, তখনই কি আপনি আপনার স্মার্ট ফোনে গুগল (Google)সার্চ করেন?

অনেক মানুষ বর্তমানে স্বনির্ভর হয়েছে। কিন্তু এই স্বনির্ভরতা বলতে আপনি কি বোঝেন? মানুষের হাতে টাকা থাকলেই কি মানুষ স্বাধীন?

যার কাছে জ্ঞান নেই, যে অজ্ঞান; তার কাছে যতই টাকা থাক না কেন, সে কিছুতেই স্বনির্ভর হতে পারে না। যে প্রকৃত জ্ঞানী, সেই তো স্বনির্ভর।

আর এই জন্যই কি আপনি স্মার্ট ফোনের মধ্যেই ব্যস্ত থাকেন? কিছু সমস্যা এলেই কি আঙ্গুল ব্যস্ত হয়ে ওঠে গুগল (Google) সার্চ এ?

যাকে নির্ভর করছেন তার সত্যতা যাচাই করেছেন কখনো? যে ইন্সট্রুমেন্ট দিয়ে জ্বর মাপছেন, সেই ইন্সট্রুমেন্ট নিজেই যদি ঠিক লজিকে না চলে, তাহলে সে ঠিক রেজাল্ট দেবে কি করে?

গুগল (Google) তো একটি অ্যাপ মাত্র যার নেই কোন চিন্তা শক্তি নেই কোন নিজস্ব জ্ঞান, নেই কোন চেতনা শক্তি; যে শুধুমাত্র অন্যের দেওয়া তথ্য ডিসপ্লে করে থাকে; তাকে এতোটা নির্ভর করা কি ঠিক?

গুগল (Google) তো অনেক মানুষের প্রতিভা; অনেক মানুষের দৌরাত্ম্য; অনেক মানুষের অত্যাচারের কাহিনী।

প্রতিভাবান ব্যক্তিরা প্রকৃতি থেকে, আশপাশ থেকে আর বিজ্ঞান থেকে জ্ঞান সংগ্রহ করে তা লিপিবদ্ধ করে কম্পিউটার এর হার্টে।

যেসব জ্ঞান লিপিবদ্ধ করে হয়েছে, সেসব থেকে আপনি যদি গুগল (Google) সার্চ করেন, আপনি ভালো এবং ঠিক উত্তরেই পাবেন।

আর যা লিপিবদ্ধ করা হয় নি, সেইসব থেকে যদি আপনি সার্চ করেন, আপনি তার উত্তর পাবেন না।

আবার কোন ব্যক্তি যদি ইচ্ছাকৃত ভুল টিপস দিয়ে থাকে, তাহলে আপনিও তো ভুল উত্তরই পাবেন। এটাকে কি নির্ভরশীল বলে না?

গুগল (Google) কি

গুগল সার্চ ইঞ্জিন।
গুগল সার্চ

গুগল (Google) হল একটা সার্চ ইঞ্জিন। যখন কেউ পথ হারিয়ে ফেলে কিংবা কোন প্রশ্নের উত্তর জানতে চায়, তখন সে গুগল (Google) এর হেল্প নেয়। গুগল (Google) কে জিগ্যেস করলে গুগল (Google) তার উত্তর দেয়।

কি কি জিনিষ গুগল সার্চ করা উচিৎ নয়

১। অনলাইন ব্যাঙ্কিং

 আপনার ব্যাঙ্কিং একাউন্টের সঠিক লিংক জানা না থাকলে কি আপনি তা গুগলে সার্চ করেন? মনে রাখবেন, প্রায় বেশীরভাগ ব্যাঙ্ক এরই ফিশিং সাইট রয়েছে অনেক।

তাই আপনি যদি ভুল করে এই ফিশিং সাইটে গিয়ে আপনার ব্যাঙ্কিং ডিটেলস দিয়ে থাকেন, আপনার একাউন্ট হ্যাক হওয়ার সম্ভাবনা অনেক গুন বেশী। তাই ব্যাঙ্কিং ডিটেলস দেওয়ার আগে সঠিক লিঙ্ক জানুন।

২। রোগের ওষুধ জানতে চাইবেন না

অসুস্থতায় কি ভুগছেন? শরীরে কিছু সমস্যা হলেই কি গুগল এ সার্চ করেন? হাল্কা মাথা ব্যাথা, সর্দি-কাশী –এইসবের জন্য ঘরোয়া ভেষজ উপায় ফলো করা ঠিকই আছে। কিন্তু কোন বড় রোগের জন্য কি ট্যাবলেট খাবেন তা গুগল থেকে জেনে খাওয়া একেবারেই উচিৎ নয়।

আপনি গুগল এ সার্চ করা অবধি ঠিকই আছে। কিন্তু তাও সার্চ করার আগে সেই সাইট সম্পর্কে জানুন। সার্চ করার পরই (বা সার্চ না করলেও চলবে) ডাক্টারের পরামর্শ নিন।

৩। সঠিক জায়গা থেকে এপ্স ডাউনলোড করুন

যে কোন এপ্স ডাউনলোড করার আগে, সেই এপ্স সম্পর্কে জানুন। এপ্স ডাউনলোড এর পেজেই নীচের দিকে এপ্সটি সম্পর্কে রিভিউ দেওয়া আছে। রিভিউ পড়ুন ভালো করে। রেটিং দেখুন।

সঠিক জায়গা থেকে এপ্সটি ডাউনলোড করুন। তা না হলে এপ্স ডাউনলোড এর সাথে সাথে অনেক ক্ষতিকর ভাইরাস ঢুকে যাবে আপনার মুবাইল ফোনে যার জন্য আপনার ফোন হ্যাক হয়ে যেতে পারে।

৪। কাস্টোমার কেয়ার এর নাম্বার সার্চ করবেন না

কাস্টোমার কেয়ার এর নাম্বার ডাইরেক্ট সার্চ করবেন না গুগল এ।

যেমন ধরুন- আপনার রিলাইন্স জিও এর কাস্টমার কেয়ার এর নাম্বার লাগবে। গুগল এ সার্চ দেবেন না যে ‘রিলাইন্স জিও এর কাস্টমার কেয়ার এর নাম্বার কি’। বরং, রিলায়েন্স জিও এর সাইটে যান। সেই সাইটেই পেয়ে যাবেন আপনার প্রশ্নের উত্তর।

৫। যাচাই করে ঠিক জায়গা থেকে এন্টি ভাইরাস কিনুন

প্রতিটি প্রোডাক্ট এর জন্য লাখ লাখ অনলাইন দোকান খোলা রয়েছে। সঠিক দোকানের url জানুন আগে। তারপরে এন্টি ভাইরাস কিনুন সেই সঠিক url থেকে। তা না হলে কিন্তু ক্ষতিকর ভাইরাস এর প্রকোপে পড়তে পারেন আপনি।

৬। যে কোন সাইট থেকে কেনা কাটা করবেন না

কেনা কাটা করার আগে সেই সাইট সম্পর্কে লোকজনের থেকে ফিডব্যাক নিন। সাইটের রিভিউ পড়ুন। আর সেই সাইটের সঠিক url থেকে সাইটটি খুলুন। তারপরে কেনা কাটা শুরু করুন।

৭। মুবাইলে যেসব মেসেজ পান যে আপনি ২ লাখ টাকা উইন করেছেন সেসব মেসেজ ইগনোর করুন

অনেকেই পেয়েছেন আকর্ষণীয় সংবাদ যে আপনার মুবাইল ফোনটি ২ লাখ টাকা জিতেছে। আর সেইজন্য আপনাকে আপনার ডিটেলস যেমন ধরুন-আপনার নাম,মেল আইডি, ব্যাঙ্কিং একাউন্ট এর ডিটেলস দিতে হবে।

সাবধান, এই ফাঁদে পা দেবেন না। এইসব ডিটেলস দিলে আপনি পড়তে পারেন প্রবল আশঙ্কায়। আপনার ব্যাঙ্ক একাউন্ট হ্যাক হয়ে ব্যাঙ্কিং ব্যালেন্স শুন্যতে পৌঁছে যেতে পারে। কিংবা, আপনাকে ওই ফেক সাইটের লোকজন নানানভাবে হেরাস করতে পারে।

৮। ভুল সাইট থেকে লোটারি খেলবেন না

আপনি কি লোটারি খেলেন? বর্তমানে সব কিছু অনলাইন হওয়ায়, আপনি কি ভাবছেন গুগল এ সার্চ দেবেন ‘লোটারি খেলা’ বলে? আর তারপরেই বেশী টাকার এমাউন্ট দেখে, সেই লটারি খেলাটাই খেলতে শুরু করে দেবেন?

খেলার আগে ব্যাঙ্কিং ডিটেলস দিতে হবে। তা না দিলে তো আপনি খেলতে পারবেন না। এমন কিছু স্টার্ট গেম বাটন আছে; যেখানে ক্লিক করলেই আপনার ব্যাঙ্কিং একাউন্ট থেকে সেই গেমটি খেলার জন্য যে পরিমানে টাকা লাগবে তা অটোমেটিক কেটে নেবে।

সাবধান! আপনি কিন্তু ফেঁসে যেতে পারেন। আপনি ভাবছেন পরের বার আপনি জিতবেন, তাই কিছুটা টাকা দিলেন। এইভাবে প্রতিবার আপনি টাকা দিতে থাকবেন।কিন্তু একবারও আপনি জিতবেন না। কিছু সাইটে এটাই ফিক্সড করা থাকে যে সাইটের লোকজন ছাড়া অন্য কেউ জিতবেই না।

তবে ভালো কিছু সাইটও আছে, যেখানে ঠিকঠাক লোটারি খেলা হয়। আর এইজন্যই আপনাকে সঠিক url জানতে হবে।

ওপরে উল্লিখিত এই ৮ টি জিনিষ সার্চ করার সময় খুবই সাবধান হয়ে যান। সঠিক এড্রেস জানুন আগে, তারপরে সেই অনলাইন দোকানে ঢুকুন। তাই গুগল এ কিছু সার্চ করার আগে সকলেরই জানা উচিৎ গুগল এ কি সার্চ করা উচিৎ আর কি উচিৎ নয়, সার্চ করলেও কিভাবে করা উচিৎ।

আশা করি, এই পোস্ট টি আপনাদের গুগল এ সঠিক ভাবে সার্চ করতে খুবই সাহায্য করবে।

সুস্থ থাকুন, ভালো থাকুন, সবাইকে ভালো রাখুন। চলুন, সবাই মিলে একসাথে এক সুন্দর পৃথিবী গড়ে তুলি। এই পৃথিবীর প্রতিটি কোনা ভরে উঠুক ঈশ্বরের আশীর্বাদে!  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সাম্প্রতিক পোস্ট